নকল স্বর্ণের বার প্রতারক চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

নকল স্বর্ণের বার প্রতারক চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

মোঃ হাবিব বিজয়নগর টিভি 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর থানায় স্বর্ণের বার প্রতারক

চক্রের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে বিজয়নগর থানা পুলিশ।

২৯শে জুন ২০২৪ইং তারিখে সকাল ১০.৩০ ঘটিকায় চান্দুরা বাস স্ট্যান্ডে একদল সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র সিএনজি নিয়ে যাত্রী বেশে অবস্থান কালে বিজয়নগর থানার ৯নং চর-ইসলামপুর ইউনিয়নের নাজিরাবাড়ি গ্রামস্থ ভুক্তভোগী-সুরাইয়া বেগম, স্বামী-হামদু মিয়া, চান্দুরা হতে চম্পকনগর বাজারে যাওয়ার জন্য সিএনজি স্টেশনে আসলে পূর্ব হতে অবস্থান করা প্রতারক চক্রের ড্রাইভার সাদ্দাম হোসেনের সিএনজিতে যাত্রী বেশে উঠে।

প্রতারকচক্রের মহিলা সদস্য রিমা বেগমসহ তার অপর তিনজন সহযোগী (একজন তার স্বামী-শরিফ, একজন তার আপন ভাই, অপরজন তার নিকট আত্মীয়) চম্পকনগর যাওয়ার পথিমধ্যে অভিনব কৌশলে একটি পুরাতন মানিব্যাগ প্রতারক চক্রের এক সদস্য ভুক্তভোগীর অগোচরে রাস্তায় ফেলে নিজেদের পরিকল্পনা মতে একটি মানিব্যাগ পেয়েছে বলে গাড়ি থামায়।

গাড়ি থামিয়ে মানিব্যাগটি হাতে নিয়া মানিব্যাগের ভিতর থাকা কাগজের পোস্টার দ্বারা মোড়ানো একটি ২২ ক্যারেট এর স্বর্ণের বার, তিন ভরি একটি চিরকুটে লেখা। তখন তাদের মধ্যে স্বর্ণের বার নেওয়ার জন্য একে অপরের সাথে প্রতারণামূলক কথা বলে এবং অভিনয় করতে থাকে।

তাদের কথাবার্তায় ভুক্তভোগী-সুরাইয়া বেগম এর নিকট অরজিনাল স্বর্ণ বলে বিশ্বাস জন্মায়। পরে তাদের মধ্যে মানিব্যাগটি পাওয়া ব্যক্তি তার বোনের বিয়ের জন্য স্বর্ণের বারটি বিক্রি করে দিতে চায়। তখন তারা নিজেদের মধ্যে দরদাম করে ভুক্তভোগীকে আরো গভীর বিশ্বাসে প্রলোভিত করে। তখন ভুক্তভোগী সুরাইয়া বেগম স্বর্ণ কিনতে রাজি হয় এবং দর কষাকষি করে তার সঙ্গে থাকা ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা প্রদান করে।

তারা টাকা নিয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর ভুক্তভোগী কিছুটা স্বাভাবিক হলে সে প্রতারিত হয়েছে মর্মে বুঝতে পারেন। তখন তাৎক্ষনিক পুলিশকে অবহিত করলে, বিজয়নগর থানা কর্মরত এসআই (নিঃ) মো. ইউনুছ মিয়ার নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স সহ পুলিশ সাড়াশি অভিযান পরিচালনা করে,প্রতারক চক্রের ০৩ জন সদস্য আটক করে এবং ২ টি নকল স্বর্ণের বার জব্দ করে।

গ্রেফতারকৃত আসামীদের দেওয়া তথ্য মতে ঘটনার মূলহোতা শরিফুল ইসলামকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হইতে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে তার দেখানো মতে নকল স্বর্ণের বার তৈরির যন্ত্রপাতি সহ আরো পাঁচটি নকল স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে উক্ত স্বর্ণের চামচ, দোকান ঘর ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, সড়ক বাজার হতে আসামীর দেখানো

সনাক্ত মতে উদ্ধারপূর্বক নমুনা আলামত হিসাবে বিধি মোতাবেক জব্দ করা হয়। উক্ত বিষয়ে অত্র বিজয়নগর থানার মামলা নং-৩৬ (৬)২৪, ধারা-৪০৬/৪২০/৩৪ পেনাল কোড রুজু করা হয়।

এ বিষয়ে জনাব মো. সোনাহর আলী শরীফ,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, বলেন, আমাদের কাছে সঠিক তথ্য-উপাত্ত থাকায়, পুলিশি কায়দা কানুন ব্যবহার করে, গুরুত্বের সাথে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে থাকি । জেলা ব্যাপী আমাদের এ অভিযান অব্যাহত আছে

ট্যাগ :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

বিজয়নগরে চুরির অপবাদে ১-নারীকে নির্যাতনের দায়ে-২ ইউপি সদস্য গ্রেফতার

নকল স্বর্ণের বার প্রতারক চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

আপডেট টাইম : ০৬:৪৬:৫২ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩ জুলাই ২০২৪

নকল স্বর্ণের বার প্রতারক চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার

মোঃ হাবিব বিজয়নগর টিভি 

ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার বিজয়নগর থানায় স্বর্ণের বার প্রতারক

চক্রের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে বিজয়নগর থানা পুলিশ।

২৯শে জুন ২০২৪ইং তারিখে সকাল ১০.৩০ ঘটিকায় চান্দুরা বাস স্ট্যান্ডে একদল সংঘবদ্ধ প্রতারক চক্র সিএনজি নিয়ে যাত্রী বেশে অবস্থান কালে বিজয়নগর থানার ৯নং চর-ইসলামপুর ইউনিয়নের নাজিরাবাড়ি গ্রামস্থ ভুক্তভোগী-সুরাইয়া বেগম, স্বামী-হামদু মিয়া, চান্দুরা হতে চম্পকনগর বাজারে যাওয়ার জন্য সিএনজি স্টেশনে আসলে পূর্ব হতে অবস্থান করা প্রতারক চক্রের ড্রাইভার সাদ্দাম হোসেনের সিএনজিতে যাত্রী বেশে উঠে।

প্রতারকচক্রের মহিলা সদস্য রিমা বেগমসহ তার অপর তিনজন সহযোগী (একজন তার স্বামী-শরিফ, একজন তার আপন ভাই, অপরজন তার নিকট আত্মীয়) চম্পকনগর যাওয়ার পথিমধ্যে অভিনব কৌশলে একটি পুরাতন মানিব্যাগ প্রতারক চক্রের এক সদস্য ভুক্তভোগীর অগোচরে রাস্তায় ফেলে নিজেদের পরিকল্পনা মতে একটি মানিব্যাগ পেয়েছে বলে গাড়ি থামায়।

গাড়ি থামিয়ে মানিব্যাগটি হাতে নিয়া মানিব্যাগের ভিতর থাকা কাগজের পোস্টার দ্বারা মোড়ানো একটি ২২ ক্যারেট এর স্বর্ণের বার, তিন ভরি একটি চিরকুটে লেখা। তখন তাদের মধ্যে স্বর্ণের বার নেওয়ার জন্য একে অপরের সাথে প্রতারণামূলক কথা বলে এবং অভিনয় করতে থাকে।

তাদের কথাবার্তায় ভুক্তভোগী-সুরাইয়া বেগম এর নিকট অরজিনাল স্বর্ণ বলে বিশ্বাস জন্মায়। পরে তাদের মধ্যে মানিব্যাগটি পাওয়া ব্যক্তি তার বোনের বিয়ের জন্য স্বর্ণের বারটি বিক্রি করে দিতে চায়। তখন তারা নিজেদের মধ্যে দরদাম করে ভুক্তভোগীকে আরো গভীর বিশ্বাসে প্রলোভিত করে। তখন ভুক্তভোগী সুরাইয়া বেগম স্বর্ণ কিনতে রাজি হয় এবং দর কষাকষি করে তার সঙ্গে থাকা ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা প্রদান করে।

তারা টাকা নিয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পর ভুক্তভোগী কিছুটা স্বাভাবিক হলে সে প্রতারিত হয়েছে মর্মে বুঝতে পারেন। তখন তাৎক্ষনিক পুলিশকে অবহিত করলে, বিজয়নগর থানা কর্মরত এসআই (নিঃ) মো. ইউনুছ মিয়ার নেতৃত্বে সঙ্গীয় ফোর্স সহ পুলিশ সাড়াশি অভিযান পরিচালনা করে,প্রতারক চক্রের ০৩ জন সদস্য আটক করে এবং ২ টি নকল স্বর্ণের বার জব্দ করে।

গ্রেফতারকৃত আসামীদের দেওয়া তথ্য মতে ঘটনার মূলহোতা শরিফুল ইসলামকে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর হইতে গ্রেফতার করা হয়। পরবর্তীতে তার দেখানো মতে নকল স্বর্ণের বার তৈরির যন্ত্রপাতি সহ আরো পাঁচটি নকল স্বর্ণের বার উদ্ধার করা হয়। ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদে উক্ত স্বর্ণের চামচ, দোকান ঘর ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর, সড়ক বাজার হতে আসামীর দেখানো

সনাক্ত মতে উদ্ধারপূর্বক নমুনা আলামত হিসাবে বিধি মোতাবেক জব্দ করা হয়। উক্ত বিষয়ে অত্র বিজয়নগর থানার মামলা নং-৩৬ (৬)২৪, ধারা-৪০৬/৪২০/৩৪ পেনাল কোড রুজু করা হয়।

এ বিষয়ে জনাব মো. সোনাহর আলী শরীফ,অতিরিক্ত পুলিশ সুপার, বলেন, আমাদের কাছে সঠিক তথ্য-উপাত্ত থাকায়, পুলিশি কায়দা কানুন ব্যবহার করে, গুরুত্বের সাথে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে থাকি । জেলা ব্যাপী আমাদের এ অভিযান অব্যাহত আছে