গর্ত খুঁড়ে মাটি লুটে নেওয়ার অভিযোগ

গর্ত খুঁড়ে মাটি লুটে নেওয়ার অভিযোগ

মসজিদের পাশে গর্ত খুঁড়ে মাটি লুটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে হাবিবুর রহমান নামের স্থানীয় এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

শুক্রবার (৫ জুলাই) সকালে উপজেলার ধরখার ইউনিয়নের বনগজ গ্রামে এ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। হাবিবুর রহমান ওই গ্রামের মৃত আশরাফ আলী ফকিরের ছেলে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, আখাউড়া উপজেলার বনগজ গ্রামের পশ্চিমপাড়া নূরে মদিনা জামে মসজিদের পাশের জমি হাবিবুর রহমানের পৈতৃক সম্পত্তি। তিনি মসজিদের উত্তর পাশের দেয়াল ঘেঁষে ভেকু মেশিনে গভীর গর্ত খুঁড়ে মাটি লুটে নেয়। এতে মসজিদের দেয়াল ও ফ্লোর ধসে পড়ে। মসজিদে ছাদসহ বিভিন্ন স্থানে ফাটল দেখা দেয়।

স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার আব্দুল আলীম, মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, তাহের মিয়া, ময়নাল মিয়া, নূরুল ইসলাম, মকবুল সরকার, জব্বর মিয়া, গোলাম মোস্তফা রেজভি, আব্দুল আজিজসহ একাধিক বাসিন্দা জানান, এ মসজিদটি প্রায় অর্ধকোটি টাকা ব্যয় করে নির্মাণ করে গ্রামবাসী। কিন্তু এ মসজিদের পাশের জমি গ্রামের প্রভাবশালী হাবিবুর রহমানের হওয়ায় সে মসজিদের দেয়াল ঘেঁষে গভীর গর্ত খুঁড়ে মাটি লুট করে নিয়ে যায়। এতে যেকোনো সময় মসজিদটি ধসে পড়ার শঙ্কা প্রকাশ করছেন স্থানীয়রা।

তারা আরও বলেন, মুসল্লিরা মসজিদে সালাত আদায় এবং গ্রামের শিশু কিশোররা মক্তবে আসেন। মসজিদ ধসে পড়ার আতঙ্কে থাকেন অভিভাবকরা।
এ বিষয়ে গ্রামবাসী উপজেলা প্রশাসনের কাছে প্রতিকার চেয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানিয়েছেন।

অভিযুক্ত রফিকুল ইসলাম বলেন, ওই মসজিদ অবৈধ জায়গাতে অবৈধভাবে নির্মাণ করা হয়েছে। তবে আমার নিজস্ব জায়গা থেকে আমি মাটি কেটে নিয়েছি কারও ব্যক্তিগত জায়গা থেকে মাটি লুট করিনি।

ট্যাগ :

Write Your Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Save Your Email and Others Information

বিজয়নগরে চুরির অপবাদে ১-নারীকে নির্যাতনের দায়ে-২ ইউপি সদস্য গ্রেফতার

গর্ত খুঁড়ে মাটি লুটে নেওয়ার অভিযোগ

আপডেট টাইম : ০২:২৬:০৭ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ৬ জুলাই ২০২৪

গর্ত খুঁড়ে মাটি লুটে নেওয়ার অভিযোগ

মসজিদের পাশে গর্ত খুঁড়ে মাটি লুটে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে হাবিবুর রহমান নামের স্থানীয় এক প্রভাবশালীর বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ক্ষুব্ধ এলাকাবাসী বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে।

শুক্রবার (৫ জুলাই) সকালে উপজেলার ধরখার ইউনিয়নের বনগজ গ্রামে এ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। হাবিবুর রহমান ওই গ্রামের মৃত আশরাফ আলী ফকিরের ছেলে।

এলাকাবাসীর অভিযোগ, আখাউড়া উপজেলার বনগজ গ্রামের পশ্চিমপাড়া নূরে মদিনা জামে মসজিদের পাশের জমি হাবিবুর রহমানের পৈতৃক সম্পত্তি। তিনি মসজিদের উত্তর পাশের দেয়াল ঘেঁষে ভেকু মেশিনে গভীর গর্ত খুঁড়ে মাটি লুটে নেয়। এতে মসজিদের দেয়াল ও ফ্লোর ধসে পড়ে। মসজিদে ছাদসহ বিভিন্ন স্থানে ফাটল দেখা দেয়।

স্থানীয় ওয়ার্ড মেম্বার আব্দুল আলীম, মসজিদ কমিটির সাধারণ সম্পাদক রফিকুল ইসলাম, তাহের মিয়া, ময়নাল মিয়া, নূরুল ইসলাম, মকবুল সরকার, জব্বর মিয়া, গোলাম মোস্তফা রেজভি, আব্দুল আজিজসহ একাধিক বাসিন্দা জানান, এ মসজিদটি প্রায় অর্ধকোটি টাকা ব্যয় করে নির্মাণ করে গ্রামবাসী। কিন্তু এ মসজিদের পাশের জমি গ্রামের প্রভাবশালী হাবিবুর রহমানের হওয়ায় সে মসজিদের দেয়াল ঘেঁষে গভীর গর্ত খুঁড়ে মাটি লুট করে নিয়ে যায়। এতে যেকোনো সময় মসজিদটি ধসে পড়ার শঙ্কা প্রকাশ করছেন স্থানীয়রা।

তারা আরও বলেন, মুসল্লিরা মসজিদে সালাত আদায় এবং গ্রামের শিশু কিশোররা মক্তবে আসেন। মসজিদ ধসে পড়ার আতঙ্কে থাকেন অভিভাবকরা।
এ বিষয়ে গ্রামবাসী উপজেলা প্রশাসনের কাছে প্রতিকার চেয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জোর দাবি জানিয়েছেন।

অভিযুক্ত রফিকুল ইসলাম বলেন, ওই মসজিদ অবৈধ জায়গাতে অবৈধভাবে নির্মাণ করা হয়েছে। তবে আমার নিজস্ব জায়গা থেকে আমি মাটি কেটে নিয়েছি কারও ব্যক্তিগত জায়গা থেকে মাটি লুট করিনি।